কিভাবে শুরু করবেন কাগজের ব্যবসা (A to Z) paper business

কিভাবে শুরু করবেন কাগজের ব্যবসা (A to Z) paper business


Posted on: 2020-03-17 15:07:42 | Posted by: eibbuy.com

আজকের পর্বে কাগজ নিয়ে কিভাবে ব্যবসা করা যায় এবং কাগজের পাইকারি বাজার ও রিম কাগজের ধরন ও রিম কাগজের দাম ও রিম কাগজের পাইকারি দাম  নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করব।


কাগজ এমন এক পন্য যা কম বেশি সবাই ব্যবহার করে। কাগজের চাহিদা সব থেকে বেশী ছাত্র ছাত্রীদের এবং বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের। তাই বলা যায় কাগজের চাহিদা সব সময় বেশী। তবে পরীক্ষা উপলক্ষ্যে এর চাহিদা বেশী থাকে। তা ছাড়া আমরা কাগজের নানা রকম ব্যবহার করি  যেমনঃ (১)কাগজের ব্যাগ (২) কাগজের পেকেট (৩) কাগজের খাম (৪) কাগজের কাটুন (৫)  কাগজের ফুল (৬) কাগজের ফুল এবং কাগজের বিভিন্ন প্রকার শপিজ আরো ইত্যাদি। কাগজের ব্যবসায় সল্প সময়ে অধিক লাভ করা। এ ব্যবসায় পন্য বিক্রিতে তেমন বেশী ঝামেলা নেই। তো আপনি চাইলে শুরু করতে পারেন কাগজের ব্যবসা।


কিভাবে কাগজের ব্যবসা শুরু করবো??


আপনি কাগজের ব্যবসা শুরু করতে হলে পথমে আপনাকে চিন্তা করতে হবে আপনি কাগজের ব্যবসাটি কি পাইকারি হিসেবে চালু করবেন নাকি কাগজের ব্যবসাটিকে খুচরা বিক্রেতা  হিসেবে চালু করবেন।

(*) আপনি কাগজের ব্যবসাটি পেশার ভিন্নতার কারনে বিভিন্ন ভাবে শুরু করে পারেন যেমনঃ


(১)কাগজের ব্যবসাটি মুল ব্যবসা হিসাবে

(২) কাগজের ব্যবসাটি সাইড ব্যবসা হিসাবে

(৩) কাগজের ব্যবসাটি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে সাপ্লায়ার হিসাবে

(৪) আনলাইনের মাধ্যমে  বিক্রি করে

আজকের পর্বে কাগজের ব্যবসাটি মুল ব্যবসা হিসাবে কিভাবে শুরু করবেন এ বিষয়ে আলোচনা করব। কারন এটি নিয়ে আলোচনা করলে সব সম্পর্কে আপনাদের ধারনা দেওয়া যাবে।


প্রধান ব্যবসা হিসেবে কাগজের ব্যবসা কিভাবে শুরু করবেন??


এভাবে ব্যবসা শুরু করতে হলে আপনাকে শহর বা যেখান থেকে মানুষ পাইকারি পন্য কিনে সে সব স্থানে দোকান দিতে হবে। আর যদি মনে করেন খুচরা বিক্রি করবেন তাহলে আপনার আশেপাশে জনবহুল বাজারে দিলে চলবে। চেস্টা করবেন সব আইটেমের কাগজ স্টকে রাখতে।



কাগজের বিভিন্ন প্রকার সাইজ 


কাগজের ব্যবসা করতে হলে আমাদের কাগজের বিভিন্ন সাইজ সম্পর্কে জানতে হবে। কাগজের ব্যবসায় কাগজের সাইজ সম্পর্কে যানা আনেক গুরুত্ব রয়েছে।


কাগজের সাইজ কিভাবে নির্নয় করা হয়??


কাগজের আকার কাগজের মাত্রা নির্দেশ করে। কাগজ আকার ঘোষণা করার জন্য সবচেয়ে জনপ্রিয় মান হল ISO 216 এবং ISO 269। তিনটি সিরিজ যেমন A, B এবং C আকার C হল ISO 269 দ্বারা সংজ্ঞায়িত করা হয় যখন আকার A এবং B ISO 216 এর অধীনে আসে। ISO 216 এই পদ্ধতিতে ডিজাইন করা হয়েছে যে সমস্ত প্রকারের আকৃতি অনুপাত একই, তারা A, B বা C. উভয় দিকের অনুপাতটি 1 এর বর্গক্ষেত্রের মূল এক হতে পারে। এর মানে, যখন আপনি A0 কাগজের কাটা দুই মধ্যে যে আপনি A1 কাগজ পাবেন। যখন আপনি A1 কে অর্ধেক কাটাবেন, তখন আপনি A2 কাগজ পাবেন। এই কাগজ আকারের মধ্যে থেকে, যেমন A3, A4, এবং A5 হিসাবে আকার মানুষ দ্বারা প্রায়ই ব্যবহৃত হয়।


জিএসএম কী?


 কাগজ ওজন জন্য, সবচেয়ে সাধারণত অনুসরণ মান ISO 536 দ্বারা সেট মান হয়। আইএসও 536 অনুসরণ দেশ যে কাগজ এবং বোর্ড বোঝায়, গ্র্যামমেজ সংজ্ঞায়িত, বা কাগজ প্রতি বর্গ মিটার ওজন। A0 এলাকায় 1 বর্গ মিটার আকারের আকার এবং তাই 80 জিএসএম থাকা কাগজগুলির যে কোনো শীট 80 গ্রাম হবে, অন্যটি A0 শীট 100 জিএসএম হবে 100 গ্রাম ওজন।


অফিসে, 70-80 জিএসএম হল বিশ্বের অনেক অংশে ব্যবহার করা হচ্ছে এমন কাগজের মান ওজন, যদিও 100 জনের বেশি জিএসএম গুরুতর কাগজে যোগাযোগের জন্য কিছু লোক পছন্দ করে। কিছু অ্যাকাউন্টেন্ট 90gsm প্রায় 120gsm ঝাঁকনি খুব ভারী ওজন কাগজপত্র ব্যবহার। এই আনুষ্ঠানিক correspondences জন্য ব্যবহার করা হয়। সাধারনত, 160 জিএসএম থেকে যে কোনও কাগজে কার্ডের বেধ হিসাবে বিবেচিত হয়। ফাইল বিভাজকদের 180 এবং 200 এর মধ্যে একটি জিএসএম আছে। সংবাদপত্র যতটা সম্ভব হালকা হতে হবে, এবং এইভাবে, তাদের অধিকাংশের প্রায় 45 এবং 50 এর একটি জিএসএম রয়েছে।


আকার বা ওজন:


 কাগজের আকারে, আকার 0 থেকে 10 এর মধ্যে থাকে। অর্থাৎ, আমরা A0 থেকে A10, B0 থেকে B10, এবং C0 থেকে C10 পর্যন্ত আয়তাকার।


B0 হল সবচেয়ে বড় কাগজের আকার এবং এ 10টি ছোট কাগজের আকার।


উদাহরণ:


A0 1 বর্গ মিটারের কাগজের আকার মানে। নির্দিষ্ট হতে, এটি 841 মিমি × 1189 মিমি বা 33. 1 ইঞ্চি × 46. 8 ইঞ্চি।

এটি হলো বিশ্বব্যপি সাইজ তবে বাংলাদেশে জি,এস,এম পদ্ধতি বেশ জনপ্রিয়। যেমনঃ ৪০জি,এস,এম । ৪২জি,এস,এম। ৫০জি,এস,এম। ৮০ জি,এস,এম।  পিন্ট এর কাজে ব্যবহৃত A4 65 জি,এস,এম / A4 80 জি,এস,এম / A3 জি,এস,এম  কাগজ বিশেষ ভাবে প্রচলিত এবং ব্যবহৃত।


কাগজের পাইকারি বাজার কোথায়??


যে কোন ব্যবসার পুর্বে তার পাইকারি বাজার সম্পর্কে ধারণা থাকতে হওবে। কাগজের সবচেয়ে বড় পাইকারী বাজার হলো ঢাকার বাবু বাজার। এ চাড়া আপনার শহরে যারা পাইকারি কাগজ বিক্রি করে তাদের থেকে নিতে পারেন।


কত টাকা ইনভেস্ট করতে হবে??


মুটামুটি প্রথমিক আবস্থায় পাইকারি ব্যবসা দিতে চাইলে  সব মিলিয়ে ৫ লাখ টাকা ইনভেস্ট করতে হবে। তবে কাগজের ব্যবসা ব্যবসটি বাড়াতে চাইলে কাগজ কাটিং মেশিন রাখতে পারেন। তবে ব্যবসার প্রসারতার সাথে ইনভেস্টমেন্ট বাড়াতে হবে।


লাভ লোকসান??


কাগজের ব্যবসায় কোন লোকসান নেই। তবে সঠিকভাবে সংরক্ষণ বা আসময়ে স্টক করা বা কাগজ পানিতে ভিজে গেলে  লোকসান হতে পারে।

আর লাভ হবে আপনি কি পরিমান কাগজ বিক্রি কিরলেন। আপনার ব্যবসার প্রচার যত বেশী করতে পরবেন তত বেশী বিক্রি হবে এবং তত বেশী লাভ হবে।


সর্তকতাঃ


বছরে কাগজের দাম উঠানামা করে সে সব বিষয়ে পুর্ন খেয়াল রাখবেন। বাকি কম দিতে চেস্টা করবেন। ব্যবসাকে ভালো বাসুন সফলতা একদিন আসবেই ।


Related Post

জনপ্রিয় পণ্য

সাম্প্রতিক পণ্য

Leave a Comment:

Comment as:

alibaba & Import Export expert

সি এন্ড এফ, আমদানি, আলিবাবা নিয়ে যেকোনো সমস্যায় আমাকে ফেসবুকে মেসেজ করুন

এখানে ক্লিক করুন
2017 © 2024 eibbuy. All Rights Reserved.
Developed By Fluttertune react js next js